বাংলাদেশসহ চার দেশ থেকে জাপানে প্রবেশে কড়াকড়ি

জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, শুক্রবার থেকে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ফিলিপাইন ও পেরুর বাসিন্দারা জাপানে প্রবেশের ক্ষেত্রে কড়া প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। এই চার দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাপান সরকার।

গত শুক্রবার জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘোষণা দেয়, করোনা পরীক্ষার পর নেগেটিভ ফল আসার পর এই চার দেশের নাগরিকদের মধ্যে জাপানের স্থায়ী বাসিন্দা এবং দীর্ঘ  মেয়াদি ভিসা নেওয়া ব্যক্তি, তাদের স্ত্রী ও সন্তানরা অনুমতি সাপেক্ষে প্রবেশ করতে পারবে। তবে সেক্ষেত্রে করোনা পরীক্ষা করাতে হবে জাপানে প্রবেশের ঠিক আগ মুহূর্তে।

১ সেপ্টেম্বর থেকে সকল বিদেশি নাগরিকের ক্ষেত্রে এ নিয়ম চালু করবে জাপান। তবে সামনের শুক্রবার থেকে নির্দিষ্ট চারটি দেশের ক্ষেত্রে এ নিয়ম চালু হতে যাচ্ছে। এর আগে দেশগুলো থেকে যাওয়া যাত্রীদের বিমানবন্দরে পরীক্ষার পর উদ্বিগ্ন হওয়ার মতো করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হওয়ার জেরে এ ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে টোকিও।

জানা গেছে, জাপানে প্রবেশের অনুর্ধ্ব ৭২ ঘণ্টার মধ্যে করোনা পরীক্ষা করে সেই সনদ জমা দিতে হবে। সেই সঙ্গে জাপানে প্রবেশের অনুমোদন সংক্রান্ত কাগজও জমা দিতে হবে। সেগুলো খতিয়ে দেখবে জাপানের দূতাবাস এবং কনস্যুলার অফিসগুলো।

গত ৩ এপ্রিল থেকে করোনা মহামারির কারণে কড়া লকডাউনের পর বিদেশিদের জন্য দরজা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতেই নতুন করে ভাবছে টোকিও। গত সপ্তাহে জাপান সরকার সিদ্ধান্ত নেয়, বিদেশিদের মধ্যে যারা ৩ এপ্রিলের আগে সে দেশ ছেড়ে গেছে, তারা বুধবার থেকে জাপানে ফিরতে পারবে।

যদিও, সবাইকে জাপানে প্রবেশের ব্যাপারে করোনা পরীক্ষার সনদ দেখাতে হবে এবং ১৪ দিন আইসোলেশনে থাকতে হবে। এই সময়ে তারা গণপরিবহন ব্যবহার করতে পারবে না।

জাপান সরকারের তথ্য অনুসারে, বিদেশি নাগরিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি হওয়ার আগে দুই লাখের বেশি মানুষ সাময়িকভাবে জাপান ছেড়েছে। শর্ত সাপেক্ষে এখন তারা জাপানে প্রবেশ করতে পারবে।

সূত্র : জাপান টাইমস
https://www.kalerkantho.com/online/world/2020/08/04/941890

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *